লালমনিরহাটে রেলওয়ের আইবাস সিস্টেম জটিলতা নিরসনে আন্দোলন,ট্রেন চলাচল বন্ধের হুমকি

লালমনিরহাট সংবাদদাতা : রেলওয়ের আইবাস সিস্টেম জটিলতার বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমেছে ট্রেনচালক (লোকোমাস্টার), সহকারি চালক (সহকারী লোকোমাস্টার), গার্ড (পরিচালক) ও টিটিই।

অনতিবিলম্বে সংকট নিরসনের উদ্যোগ নেয়া না হলে সোমবার থেকেই ট্রেন চলাচল বন্ধের হুমকি দিয়েছে তারা। দাবী পূরণে লালমনিরহাট রেলওয়ের রানিং স্টাফ ও শ্রমিক কর্মচারী সমিতি রোববার (৭ নভেম্বর) সকালে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে লালমনিরহাট রেল স্টেশনে বিক্ষোভ মিছিল শেষে বিভাগীয় কার্যালয়ে সমাবেশ করে তারা।

সমাবেশে নতুন মাইলেজ কোড বাতিল করে পার্ট অফ পে হিসেবে পূর্বের ন্যায় বেতন কোড হতে মাইলেজ প্রদানের জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে দাবী জানানো হয়। এসময় রেলওয়ে রানিং স্টাফ শ্রমিক ও কর্মচারী সমিতির সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান, আইন বিষয়ক সম্পাদক আরিফুল ইসলাম রিংকু সহ শতাধিক শ্রমিক-কর্মচারী বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নেন। কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে এ কর্মসূচী পালন করা হয়। এর আগে গত রবিবারও একই কর্মসূচী পালন করে রেলওয়ের রানিং স্টাফরা। তবে আজকের কর্মসূচী থেকে আজকের মধ্যে দাবী মানা না হলে আগামীকাল থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দেয়া হয়। উল্লেখ্য, আইবাস সিস্টেম জটিলতা নিরসনে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছে রেলওয়ের রানিং স্টাফ ও শ্রমিক কর্মচারীরা।

এ ব্যাপারে রেলওয়ে রানিং স্টাফ ও শ্রমিক কর্মচারী সমিতির লালমনিরহাট বিভাগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ বলেন, “রেল সৃষ্টির পর থেকে ট্রেন চালকরা মাসে যত ঘণ্টা ট্রেন চালান মাস শেষে বেতন এর পাশাপাশি ততো ঘন্টার মাইলেজ ভাতা পেয়ে আসছেন। কিন্তু রেলওয়েতে ডিজিটাল সিস্টেম আইবাস পদ্ধতিতে বেতন ভাতা পরিশোধের নতুন নিয়ম চালু করার পায়তারা চলছে। এই ব্যবস্থা চালু হলে ট্রেনের লোকো মাস্টার (ট্রেনচালক) সহকারি লোকোমাস্টার (সহকারি ট্রেনচালক) গার্ড (ট্রেন পরিচালক) টিটিইরা মাসে ছয় থেকে আট হাজার মাইল ট্রেন চালালেও তিন হাজারের বেশি মাইলেজ পাবেন না। সারাদেশে আমাদের এগার শত লোকোমাস্টার ও সহকারী লোকো মাস্টার, ছয় শত ট্রেন পরিচালক ও প্রায় আট শত টিটিই আছেন যারা ট্রেন চালানোর ক্ষেত্রে ভূমিকা পালন করে আসছেন। এই তিন স্তরের কর্মচারীরা আমরা যারা রেলওয়ে রানিং স্টাফ তারা রেল সৃষ্টির শুরু থেকে রেলওয়ে কোডের বিধান মতে আট ঘণ্টা কাজের জন্য বা প্রতি একশত মাইল ট্রেন চালালে একদিনের মূল বেতনের সমপরিমাণ অতিরিক্ত মাইলেজ ভাতা পেয়ে থাকি। ট্রেন চালানোর সময় খাওয়া-দাওয়া বাবদ ব্যয় করতে হয় এই হিসাবে ছয় থেকে আট হাজার মাইল ট্রেন চালালে সাইট থেকে আশি দিন এর মাইলেজ ভাতা হিসেবে মাসিক বেতনের সাথে নিয়মিত পেয়ে আসছেন।

সেই পুরোনো নিয়মকে বদলানোর পায়তারা করা হচ্ছে। এটা সফল হতে আমরা দেবো না, প্রয়োজনে সবাই মিলে ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেবো।”এদিকে আজ রবিবার রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব আন্দোলনকারীদের সাথে সমঝোতা বৈঠকে বসার কথা রয়েছে বলে জানিয়েছেন রানিং স্টাফ নেতারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*